Friday, January 30, 2015

বিয়ের আগেই জেনে রাখুন সম্পর্কের কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য


বিয়ে করা আপনার মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে মধ্যবয়সের সমস্যা থেকে দূরে রাখতে সহায়তা করে বিয়ে। বিয়ের সম্পর্ককে সফল করার জন্য বিয়ের আগেই কিছু বিষয় ভেবে নেওয়া দরকার। এ বিষয়গুলো আগেই চিন্তাভাবনা করে ঠিক করে নেওয়া হলে তা বিয়ের সাফল্য বাড়াতে ভূমিকা রাখতে পারে। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে বিজনেস ইনসাইডার।


১. সিদ্ধান্ত নিতে ২৩ বছর বয়স পর্যন্ত অপেক্ষা করুন
গবেষণায় দেখা গেছে, অল্প বয়সে বিয়ে করলে ডিভোর্সের সম্ভাবনা বেড়ে যায়। অন্যদিকে যারা ২৩ বছর বয়স পর্যন্ত অপেক্ষা করে, তাদের ডিভোর্সের সম্ভাবনা অনেক কম থাকে। এর অন্যতম কারণ অল্প বয়সে সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার মতো দক্ষতা অর্জিত হয় না বলে জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।
 ২. ‘ভালোবাসা’ থাকে এক বছর
তীব্র আকর্ষণ চিরকাল থাকে না। অনেকেই বলেন, বিয়ের এক বছর পর্যন্ত হানিমুন পিরিয়ড। আর এ বিষয়টি গবেষণাতেও প্রমাণিত হয়েছে। বিয়ের পর প্রথম এক বছর পর্যন্ত দম্পতিদের পরস্পরের প্রতি আকর্ষণ সবচেয়ে বেশি থাকে। এ বিষয়টিকে আগে থেকে জেনে রাখলে তা সম্পর্ক গড়তে ও তা টিকিয়ে রাখতে সহায়তা করে।
৩. আপনি একা নন
বিয়ের পর একত্রে বসবাস শুরু করলে আপনার মেনে নিতে হবে যে আপনি একা নন। এতে আপনার অগ্রাধিকার ও অন্যান্য বিষয়গুলোও ভিন্ন হবে। আগে যে কাজ করতে একা সিদ্ধান্ত নিতেন, বিয়ের পর তা দুজনে মিলে সিদ্ধান্ত নেবেন, এমনটাই ভেবে নিতে হবে।
৪. সঙ্গীর ভালো খবরে খুশি 
সঙ্গীর ভালো খবর শুনে আপনি যদি খুশি হন তাহলে বুঝতে হবে আপনাদের মধ্যে রসায়ন ঠিক রয়েছে। বিভিন্ন গবেষণাতে বিষয়টি প্রমাণিত হয়েছে।
৫. দুজনের মিল হতে পারে, নাও হতে পারে
মানুষের ইগো একটি অদ্ভুত বিষয়। এ ইগো অনুযায়ী আপনার কোনো ব্যক্তিকে পছন্দ হতে পারে আবার নাও পারে। ১৯৫০ ও ১৯৬০ সালে কানাডিয়ান মনোবিদ এরিক বার্ন ‘থ্রি টায়ার্ড মডেল’-এ বিষয়টি ব্যাখ্যা করেন। এক্ষেত্রে পিতামাতা ছোটবেলায় কেমন শিক্ষা দিয়েছেন, কেমন অনুভূতি ছিল এবং কিছুটা বড় হয়ে বিশ্ব সম্বন্ধে আপনার কেমন মূল্যায়ন ছিল -এ বিষয়গুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।
৬. সেরা বন্ধুদের মাঝে সুখী দাম্পত্য 
বিবাহিত জীবন মানে দুজন মানুষের একত্রে থাকা। সেরা বন্ধুদের মাঝে বিয়ে পরবর্তী জীবনে সুখী হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। ২০১৪ সালের এক গবেষণায় বিষয়টি প্রমাণিত হয়। আর এক্ষেত্রে বিয়ের পরও এ বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার প্রচেষ্টা থাকতে হবে।
৭. সমবয়সীদের বিচ্ছেদ কম 
বিয়ের ক্ষেত্রে বয়সের পার্থক্য অনেক সময় দম্পতিদের জন্য সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়, যা অনেক সময় বিয়ে-বিচ্ছেদে পর্যবসিত হয়। তাই এটি যেন মাত্রাতিরিক্ত না হয় সেজন্য গুরুত্ব দেওয়া প্রয়োজন।
৮. ঘরের কাজ ভাগ করে নেওয়া 
আধুনিক যুগে বিবাহিত জীবনে ঘরের কাজ উভয়কেই করতে হয়। কিন্তু তার মানে এটা নয় যে, একই কাজ উভয়কে করতে হবে। এক্ষেত্রে কাজ ভাগ করে নেওয়া সবচেয়ে ভালো। অর্থাৎ আপনি যে কাজটি ভালোভাবে করতে পারেন তা একাই করুন। আপনার সঙ্গী বাড়ির যে কাজটি করতে দক্ষ, তাকে সেটি করতে দিন।

সূত্রঃ internet (BD NEWS)

0 comments:

Post a Comment

Popular Posts